জনপদ গ্রামীণ জনপদ শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি ব্যাবসা-বানিজ্য-অর্থনীতি আমাদের প্রসঙ্গে

,

,

প্রচ্ছদ
ফটো ক্যাপশনঃ নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের
ফটো ক্যাপশনঃ নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের ফটো ক্যাপশনঃ নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের
ফটো ক্যাপশনঃ নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের ফটো ক্যাপশনঃ নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের
Gaibandha.News Logo

ফটো ফিচার

বড় করে দেখতে ছবিতে ক্লিক করুন

ফটো ফিচার
নির্ঘূম রাত কাটছে গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষের

গাইবান্ধা ডট নিউজ | সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৭

গাইবান্ধা ডট নিউজ: হেদায়েতুল ইসলাম বাবু


দল বান্দি আসিয়া মারি ধরি গোলোত থাকি গরু নিয়্যা যায়। মানা করলে আন্দাপাতালে হামাক মারধর করে। ওমার (ডাকাতের) কোন মায়া দয়া নাই। যা পায়, তাই নিয়া যায়। গরুর সাথে সাথে ওমরা বউ বেটিরও ক্ষতি করে ভাই, মাও-বোন কিছুই মানে না। বাধ্য হয়ে সারারাত নদীর পাড়োত কাটাই। নৌকার শব্দ শুনলে হই হুল্লোর করি উটি। ডাকাতের নাও যাতে চরোত নাগব্যার না পায়। পোত্তেক আতে একবার পুলিশের নাও আসি টহল দিয়ে যায়। তাতে হামার সাহস বাড়ছে।

সম্প্রতি পুরোনো ফুলছড়ির একটি দোকানে চায়ের আড্ডায় এমন গল্প করছিলেন চুল দাড়ি পাকা কয়েকজন বৃদ্ধ। হাটে এসেছিলেন বাজার করতে। প্রতি সপ্তাহে একদিন তারা ফুলছড়ি হাটে আসেন বাজার করতে। গল্প শেষ না হতেই ঘাট থেকে মাঝির হাক- কালি সনদ্যা নামি আলো, মিয়া ভাইয়েরা আসেন নাও ছাড়লো। তড়িঘড়ি করে দোকানির হাতে চায়ের বিল দিয়ে ফুলছড়ির ঘাটে গিয়ে নৌকায় উঠলেন। এক, দুই করে যাত্রী গুনে মাঝি ব্রহ্মপুত্রের স্বচ্ছ জলে নাও ভাসালেন।

মানুষ রাত জেগে কিভাবে ডাকাত পাহাড়া দেয়। কৌতুহল থেকেই নৌকা নিয়ে রওনা দেয়া। রাত ন’টা পার হয়েছে। ফুলছড়ি থানা সংলগ্ন ঘাট থেকে নৌকা ছাড়লো। আমরা বেশ কয়েকজন। নৌকার ছৈয়ের উপর বসে একজন চরে ডাকাতরা কিভাবে হামলা করে, সেই বর্ণণা করছিলেন। ভয়ও লাগছিলো। আবার নীচের দিকে তাকিয়ে দেখি ব্রহ্মপুত্র নদে বেশ রাত। বেশ কয়েকদিন টানা বন্যার সংবাদ কভারেজের জন্য নৌকায় থাকতে থাকতে নদ-নদীতে আর ভয় লাগেনা।

মাথার ওপরে তাকিয়ে দেখি অসংখ্য তারা। চাঁদনী রাত। মাঝেমধ্যে কালোমেঘগুলো আলোকিত চাঁদটাকে গিলে খাওয়ার চেষ্টা করছে। অনেকক্ষণ মেঘ আর চাঁদের লুকোচুরি দেখতে দেখতে চোখে ঘুম ঘুম ভাব। কোথাও কিছু দেখা যায় না। অন্ধকারে ঢাকা। মাঝে মধ্যে পানির কলকল শব্দ।

প্রায় দুইঘন্টা পর গলুইয়ে বসা মাঝি হাক ছাড়লেন, ভাইজানেরা সামনেরডা উত্তর খাটিয়ামারী চর। নাও ভেড়াতে বললাম। পাড়ে পৌছার আগেই দুর থেকে নৌকার দিকে অসংখ্য টর্চ লাইটের আলো আর জোরে জোরে চিৎকার করছে চরের মানুষ। চরে ডাহাত পড়ছেরে, বাড়াওরে, ডাহাত পড়ছেরে...। এবার ডাকাত সন্দেহে জান যায় যায় অবস্থা। আমাদের মাঝি চিৎকার করে বললেন, ওই গ্যাদারা ডাহাতের নাও নয়, গাইআন্দা থাহি সামবাদিক ভাই আইছে, থাম, চিক্কুর পারিস না। ওরা থামলো।

নৌকা থেকে নেমে পাড়ে উঠে দেখি গভীর রাতেও শিশু, নারী, পুরুষ সবাই জেগে আছে। সাথে গ্রামপুলিশও। প্রত্যেকের গলায় গলায় বাঁশি, হাতে হাতে লাঠি। কারো হাতে ক্যাটা, হোলগোঞ্জাসহ দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্র। সাংবাদিক পরিচয় জানার পর মুহুর্তের মধ্যে হৃদ্যতা বেড়ে গেলো।

কলেজপড়–য়া মোকছেদ আলী এগিয়ে এসে বলছিলেন, বন্যা আর নদীভাঙন তাদের নাজেহাল করেছে। চরের মানুষের এখন একমাত্র সম্বল গরু। ডাকাতের অত্যাচারে সেই গরু নিয়ে তারা এখন মহাদুশ্চিন্তায়। প্রতিরাতে নদীতে ডাকাতের নৌকা আসে। রাত জেগে পাহাড়া দেয়ার কারণে তারা চরে ঢুকতে পারে না। চরাঞ্চলের মানুষের বেচে থাকার অবলম্বন গরুর প্রতি ডাকাতের চোখ পড়ায় নির্ঘূম রাত কাটছে তাদের।

পাশে দাড়িয়ে থাকা হামিদ মিয়া বললেন, খালি গরু নয়, অস্ত্রের মুখে নারীদের সম্ভ্রম পর্যন্ত লুটে নেয় ডাকাতরা। ওরা কোন বাধ-বিচার করে না। বাধ্য হয়ে জীবন-জীবিকা রক্ষায় গ্রামের সবাই প্রতিরোধ গড়ে তুলেছেন।

ছবি: হেদায়েতুল ইসলাম বাবু:



Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ছবি সংবাদ

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো ফিচার

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও প্রতিবেদন

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

সর্বশেষ খবর

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
ফটো ক্যাপশনঃ কামারজানীর মাঝিপাড়ায় এখন শুধুই শূন্যতা
ফটো ক্যাপশনঃ কামারজানীর মাঝিপাড়ায় এখন শুধুই শূন্যতা ফটো ক্যাপশনঃ কামারজানীর মাঝিপাড়ায় এখন শুধুই শূন্যতা
ফটো ক্যাপশনঃ কামারজানীর মাঝিপাড়ায় এখন শুধুই শূন্যতা ফটো ক্যাপশনঃ কামারজানীর মাঝিপাড়ায় এখন শুধুই শূন্যতা
Gaibandha.News Logo

ফটো ফিচার

বড় করে দেখতে ছবিতে ক্লিক করুন

ফটো ফিচার
হলি আর্টিজান হামলার রায় আজ, আদালত চত্বরে বিশেষ নিরাপত্তা

গাইবান্ধা ডট নিউজ | বুধবার ২৭ নভেম্বর ২০১৯

গাইবান্ধা ডট নিউজ: হেদায়েতুল ইসলাম বাবু


দল বান্দি আসিয়া মারি ধরি গোলোত থাকি গরু নিয়্যা যায়। মানা করলে আন্দাপাতালে হামাক মারধর করে। ওমার (ডাকাতের) কোন মায়া দয়া নাই। যা পায়, তাই নিয়া যায়। গরুর সাথে সাথে ওমরা বউ বেটিরও ক্ষতি করে ভাই, মাও-বোন কিছুই মানে না। বাধ্য হয়ে সারারাত নদীর পাড়োত কাটাই। নৌকার শব্দ শুনলে হই হুল্লোর করি উটি। ডাকাতের নাও যাতে চরোত নাগব্যার না পায়। পোত্তেক আতে একবার পুলিশের নাও আসি টহল দিয়ে যায়। তাতে হামার সাহস বাড়ছে।

সম্প্রতি পুরোনো ফুলছড়ির একটি দোকানে চায়ের আড্ডায় এমন গল্প করছিলেন চুল দাড়ি পাকা কয়েকজন বৃদ্ধ। হাটে এসেছিলেন বাজার করতে। প্রতি সপ্তাহে একদিন তারা ফুলছড়ি হাটে আসেন বাজার করতে। গল্প শেষ না হতেই ঘাট থেকে মাঝির হাক- কালি সনদ্যা নামি আলো, মিয়া ভাইয়েরা আসেন নাও ছাড়লো। তড়িঘড়ি করে দোকানির হাতে চায়ের বিল দিয়ে ফুলছড়ির ঘাটে গিয়ে নৌকায় উঠলেন। এক, দুই করে যাত্রী গুনে মাঝি ব্রহ্মপুত্রের স্বচ্ছ জলে নাও ভাসালেন।

মানুষ রাত জেগে কিভাবে ডাকাত পাহাড়া দেয়। কৌতুহল থেকেই নৌকা নিয়ে রওনা দেয়া। রাত ন’টা পার হয়েছে। ফুলছড়ি থানা সংলগ্ন ঘাট থেকে নৌকা ছাড়লো। আমরা বেশ কয়েকজন। নৌকার ছৈয়ের উপর বসে একজন চরে ডাকাতরা কিভাবে হামলা করে, সেই বর্ণণা করছিলেন। ভয়ও লাগছিলো। আবার নীচের দিকে তাকিয়ে দেখি ব্রহ্মপুত্র নদে বেশ রাত। বেশ কয়েকদিন টানা বন্যার সংবাদ কভারেজের জন্য নৌকায় থাকতে থাকতে নদ-নদীতে আর ভয় লাগেনা।

মাথার ওপরে তাকিয়ে দেখি অসংখ্য তারা। চাঁদনী রাত। মাঝেমধ্যে কালোমেঘগুলো আলোকিত চাঁদটাকে গিলে খাওয়ার চেষ্টা করছে। অনেকক্ষণ মেঘ আর চাঁদের লুকোচুরি দেখতে দেখতে চোখে ঘুম ঘুম ভাব। কোথাও কিছু দেখা যায় না। অন্ধকারে ঢাকা। মাঝে মধ্যে পানির কলকল শব্দ।

প্রায় দুইঘন্টা পর গলুইয়ে বসা মাঝি হাক ছাড়লেন, ভাইজানেরা সামনেরডা উত্তর খাটিয়ামারী চর। নাও ভেড়াতে বললাম। পাড়ে পৌছার আগেই দুর থেকে নৌকার দিকে অসংখ্য টর্চ লাইটের আলো আর জোরে জোরে চিৎকার করছে চরের মানুষ। চরে ডাহাত পড়ছেরে, বাড়াওরে, ডাহাত পড়ছেরে...। এবার ডাকাত সন্দেহে জান যায় যায় অবস্থা। আমাদের মাঝি চিৎকার করে বললেন, ওই গ্যাদারা ডাহাতের নাও নয়, গাইআন্দা থাহি সামবাদিক ভাই আইছে, থাম, চিক্কুর পারিস না। ওরা থামলো।

নৌকা থেকে নেমে পাড়ে উঠে দেখি গভীর রাতেও শিশু, নারী, পুরুষ সবাই জেগে আছে। সাথে গ্রামপুলিশও। প্রত্যেকের গলায় গলায় বাঁশি, হাতে হাতে লাঠি। কারো হাতে ক্যাটা, হোলগোঞ্জাসহ দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্র। সাংবাদিক পরিচয় জানার পর মুহুর্তের মধ্যে হৃদ্যতা বেড়ে গেলো।

কলেজপড়–য়া মোকছেদ আলী এগিয়ে এসে বলছিলেন, বন্যা আর নদীভাঙন তাদের নাজেহাল করেছে। চরের মানুষের এখন একমাত্র সম্বল গরু। ডাকাতের অত্যাচারে সেই গরু নিয়ে তারা এখন মহাদুশ্চিন্তায়। প্রতিরাতে নদীতে ডাকাতের নৌকা আসে। রাত জেগে পাহাড়া দেয়ার কারণে তারা চরে ঢুকতে পারে না। চরাঞ্চলের মানুষের বেচে থাকার অবলম্বন গরুর প্রতি ডাকাতের চোখ পড়ায় নির্ঘূম রাত কাটছে তাদের।

পাশে দাড়িয়ে থাকা হামিদ মিয়া বললেন, খালি গরু নয়, অস্ত্রের মুখে নারীদের সম্ভ্রম পর্যন্ত লুটে নেয় ডাকাতরা। ওরা কোন বাধ-বিচার করে না। বাধ্য হয়ে জীবন-জীবিকা রক্ষায় গ্রামের সবাই প্রতিরোধ গড়ে তুলেছেন।

ছবি: হেদায়েতুল ইসলাম বাবু:



Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ছবি সংবাদ

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো ফিচার

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও রিপোর্ট

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

সর্বশেষ খবর

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image


Gaibandha.news Ad. image

গল্প-প্রবন্ধ-নিবন্ধ

মতামত-বিশ্লেষণ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

কৃষি-বিজ্ঞান

স্বাস্থ্য-চিকিৎসা

সাজসজ্জা

রান্নাবান্না

ভ্রমণ-বিনোদন

চারু-কারুকলা

শিশুকিশোর

ইভেন্ট ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image

ইভেন্ট ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image

আর্কাইভ

SunMonTueWedThuFriSat
1

2

3

4

5

6

7

8

9

10

11

12

13

14

15

16

17

18

19

20

21

22

23

24

25

26

27

28

29

30

31

Gaibandha.news Ad. image

ইভেন্ট বোর্ড

খোঁজখবর - চাকুরি বিঞ্জপ্তি

Gaibandha.news Ad. image

খোঁজখবর - টেন্ডার বিঞ্জপ্তি

Gaibandha.news Ad. image

খোঁজখবর - বেচাকেনা

জরীপ/ভোটাভুটি (হাঁ/না)

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Activities

© 2020 Gaibandha.News. All rights reserved. Inspired by w3schools.com

Crafted with by arccSoftTech & Powered with CSR by arccY2K.com a Subsidiary of BangladeshICT.com